এইমাত্র পাওয়া

শিবগঞ্জে মাদকসেবীর মৃত্যু নিয়ে পাল্টাপাল্টি অভিযোগ

শাহ্ আলম,চাঁপাইনবাবগঞ্জ প্রতিনিধি: চাঁপাইনবাবগঞ্জের শিবগঞ্জ উপজেলার শাহবাজপুর ইউনিয়নের শিয়ালমারা এলাকায় আয়েশ উদ্দিনের ছেলে মাদকসেবী আনারুল ইসলাম (৪৫) নিহতের ঘটনায় পরিবারের পক্ষ থেকে পাল্টাপাল্টি অভিযোগ পাওয়া গেছে। ফলে মরদেহ নিয়ে বিপাকে পড়েছে থানা পুলিশ।

নিহতের স্ত্রী ও আটক ছেলেসহ পুলিশের দাবি- আনারুল ইসলাম গলায় ফাঁস দিয়ে আত্মহত্যা করেছে। অপরদিকে নিহতের দুই ভাইয়ের অভিযোগ আনারুল ইসলামকে পরিকল্পিত ভাবে হত্যা করেছে আমার ভাইয়ের স্ত্রী, তার ছেলে ও মেয়ে। শনিবার সন্ধ্যায় নিজ বসতবাড়িতে মারা যায় আনারুল ইসলাম। এ ঘটনায় জড়িত সন্দেহে পুলিশ জিজ্ঞাসাবাদের জন্য নিহত আনারুল ইসলামের ছেলে সজিবকে থানায় নিয়ে আসে। শিবগঞ্জ থানা পুলিশের উপপরিদর্শক আবদুস সালাম জানান, খবর পেয়ে থানা পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে নিহতের মরদেহ উদ্ধার করে। শিবগঞ্জ থানার ওসি (তদন্ত) সেলিম রেজা জানান, সুরতহাল প্রতিবেদনে নিহতের গলায় দাগ দেখতে পাওয়া গেলেও শরীরের কোথাও আঘাত ও রক্তের চিহ্ন পাওয়া যায়নি। নিহতের স্ত্রী মরিয়ম জানায়, আমার স্বামী গলায় ওড়না পেঁচিয়ে নিজ ঘরের মধ্যেই আত্মহত্যা করেছে। গোসল করে ঘরে গিয়ে দেখি আমার স্বামী গলায় ওড়না পেঁচানো অবস্থায় ঝুঁলে আছে। আমি দ্রুত ওড়না কেটে ফেলি। পরে চিৎকার শুনে লোকজন এসে পরীক্ষা নিরীক্ষা করে জানায় মারা গেছে। নিহতের ভাই প্রভাষক আখতারুল ইসলাম ও মকিম উদ্দীন জানায়, চক্রান্ত করে আমার ভাইয়ের স্ত্রী, তার ছেলে ও মেয়ে আমার ভাইকে হত্যা করেছে বলে সন্দেহ করছি। তারা জানায়, নিহতের ময়নাতদন্ত করে সঠিক তদন্তের মাধ্যমে জড়িতদের বিরুদ্ধে হত্যার বিচার দাবি করছি।

তবে আমার ভাই আনারুল মাঝে মধ্যে মাদকসেবন করতো। নিহতের পরিবারের দুটি পক্ষ পাল্টাপাল্টি অভিযোগ করায় মরদেহ নিয়ে বিপাকে পড়েছে থানা পুলিশ। রোববার সকালে ময়নাতদন্তের জন্য মরদেহ চাঁপাইনবাবগঞ্জ সদর আধুনিক হাসপাতাল মর্গে পাঠানো হয়েছে।

চাঁপাইনবাবগঞ্জ প্রতিনিধি, দীর্ঘদিন থেকে সাংবাদিকতা পেশার সাথে জড়িয়ে আছেন। বস্তুনিষ্ঠ সংবাদ প্রকাশই তাঁর লক্ষ্য এবং এ বিষয়ে তিনি অনেক সচেতন।

সর্বশেষ তালাশ

অপরাধ জগত