এইমাত্র পাওয়া

সুবর্ণচরে একরামুল করিম চৌধুরীর গণসংযোগ।

ইউনুছ শিকদার (নোয়াখালী) প্রতিনিধি: চরাঞ্চলের হত দরিদ্র মায়ের ঘরে গিয়ে মাঝে মাঝে বলেন মা আমাকে ভাত দেন,আমি আপনার সন্তান একরামুল করিম চৌধুরী (এমপি)।তিনি আর কেউ নয় সদর সুবর্ণচরের গণমানুষের নেতা একরামুল করিম চৌধুরী।আসন্ন একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনকে সামনে রেখে বর্তমান ক্ষমতাসীন দল আওয়ামীলীগের নোয়াখালী জেলার সাধারণ সম্পাদক ও নোয়াখালী-৪ আসনের এমপি একরামুল করিম চৌধুরী সূবর্ণচর উপজেলার বিভিন্ন ইউনিয়নে নৌকার পক্ষে ব্যাপক গণসংযোগ করেন । রবিবার সকাল থেকে তিনি তৃণমূল নেতাকর্মীদের নিয়ে সুবর্ণচরের কয়েকটি ইউনিয়নে গণসংযোগ করেন ।

ধারাবাহিক উন্নয়ন অব্যাহত রেখে নোয়াখালীর ৪ আসনের এ জনপ্রিয় এমপি জনগণের হৃদয়ে স্থান করে নিয়েছেন । তিনি নির্বাচন করার সময় জনগণকে যে প্রতিশ্রুতি দিয়েছিলেন তার চেয়ে আরো বেশি উন্নয়ন করেছেন। এ কারণে সাধারণ জনগণও তার পাশে রয়েছে । গণসংযোগ চলাকালে হাজার হাজার মানুষ তার সাথে ছিল ।

মোহাম্মদপুর ইউনিয়নের চর তোরাব আলী গ্রামের ৮০ বছরের বৃদ্ধ আবদুর রহিম বলেন,সদর-সূবর্ণচরে যে উন্নয়ন হয়েছে তা গত ২০ বছরেও হয়নি। তিনি আরো বলেন-একরামুল করিম চৌধুরী শুধু উন্নয়নই করেননি তিনি সবসময় আমাদের খোঁজখবর নিয়েছেন।

তার পাশে বসা সোলায়মান মিয়ার সাথে চা খেতে খেতে কথা বলতেই তিনি বলে উঠেন-তিনি জনগণের এত আপন হয়ে উঠেছেন যে সূবর্ণচর আসলে ভাঙ্গা চা দোকানে বসে আমাদের সাথে চা খেতে দ্বিধাবোধ করেন না ।

আর কোন নেতাকে আমরা এরকম দেখিনি । টাকার অভাবে কেউ পড়াশুনা করতে পারছে না কিংবা কোন মেয়ের বিয়ে দিতে পারছে না শুনলেই তিনি তার দানের হাত বাড়িয়ে দেন । এছাড়াও অসহায়,দুস্থ,গরীব মানুষদেরকে তো সবসময় সহযোগিতা করে আসছেন। তিনি যা বলেন তাই সাথে সাথে করেন । একারণে আমরা তাকে নগদ চৌধুরী বলি।যার সাথে কথা বলেছি সে-ই একরামুল করিম চৌধুরী এমপির প্রশংসা করেন ।

৭০ বছরের বৃদ্ধা ইসমত আরা বলেন-আমরা এই রকম এমপিরে হাই খুব খুশি,আগামীতে আমরা ওনাকেই ভোট দিমু । এরকম মানুষ আমরা হারাতে চাই না ।

সূবর্ণচরের বিভিন্ন ইউনিয়নে ঘুরে ঘুরে একরামুল করিম চৌধুরী এমপি জনগণের খোঁজ খবর নেন । এসময় কখনো কখনো আবেগঘন পরিবেশের সৃষ্টি হয় । কেউ কেউ তার হাত ধরে বাড়িতে নিয়ে যান । তিনিও খুশিমনে বাড়ি বাড়ি যান । এভাবেই তিনি মানুষের সাথে মিশে যান । জনগনের সাথে মিশে যাওয়া তার অন্যন্য একটি গুন ।

এর আগে তিনি সুবর্ণচর উপজেলা যুবলীগের মনজ দাসের অকাল মৃত্যুতে তার পরিবারের পাশে ছুটে যান এবং তাদের পাশে থাকার দৃঢ় প্রত্যয় ব্যক্ত করেন । এসময় তিনি তার পরিবারের প্রতি আর্থিক সহযোগিতার হাত বাড়িয়ে দেন।

সুবর্ণচর (নোয়াখালী) প্রতিনিধি, দীর্ঘদিন থেকে সাংবাদিকতা পেশার সাথে জড়িয়ে আছেন। বস্তুনিষ্ঠ সংবাদ প্রকাশই তাঁর লক্ষ্য এবং এ বিষয়ে তিনি অনেক সচেতন।

সর্বশেষ তালাশ

অপরাধ জগত