এইমাত্র পাওয়া

রাজধানীর পথে মাদকের চালান, আতঙ্কের নাম ওসি মিজান!

বগুড়া অফিস:
রাজধানীর পথে মাদকের চালান। রংপুর-ঢাকা ও রাজশাহী-রংপুর মহাসড়কে মাদক সিন্ডিকেটের একটাই বাধা ‘ওসি মিজান’।

একের পর এক মাদক বিরোধী অভিযানে ব্যাপক সফলতা এনেছে বগুড়ার মোকামতলা পুলিশ। ফেন্সিডিল, ইয়াবা, গাঁজা সহ বিপুল পরিমান মাদক উদ্ধারে জেলার শ্রেষ্ঠ ভুমিকা রেখে চলেছেন মোকামতলা পুলিশ তদন্ত কেন্দ্রের ইনচার্র্জ (পুলিশ পরিদর্শক) মিজানুর রহমান মিজান। বগুড়া জেলা পুলিশ সুপার আলী আশরাফ ভুঞার দিকনির্দেশনা ও কঠোরতায় পুলিশের তৎপরতা চোখে পড়ারমত। ওসি মিজান আতঙ্কে রয়েছে মাদক সিন্ডিকেট। ২২ সেপ্টেম্বর থেকে ২ অক্টোবর পর্যন্ত মাত্র ১১ দিনের পৃথক অভিযানে ২ হাজার ৫০ পিস ইয়াবা, ৪৭০ বোতল ফেন্সিডিল ও আড়াই কেজি গাঁজা উদ্ধার করেছে মোকামতলা পুলিশ। হাতেনাতে তিনজন নারী মাদক ব্যবসায়ী সহ মাদক সিন্ডিকেটের ৯জনকে গ্রেফতার করা হয়েছে।

প্রাপ্ততথ্যে জানা গেছে, ১১ দিনের পৃথক মাদক বিরোধী অভিযানে মোকামতলা পুলিশ তদন্ত কেন্দ্রের ইনচার্জ (পুলিশ পরিদর্শক) মিজানুর রহমান মিজানের সরাসরি নেতৃত্বে মঙ্গলবার (২ অক্টোবর) রংপুর থেকে ঢাকাগামী নাবিল পরিবহনের একটি যাত্রীবাহী বাস তল্লাশি করে ২ হাজার পিস ইয়াবা ও একটি সিএনজি তল্লাশি করে ৫০ পিস ইয়াবা উদ্ধার সহ হাতেনাতে দুইজন মাদক ব্যবসায়ীকে গ্রেফতার করা হয়। এরা হলেন- রংপুরের কোতায়ালি থানার জগদিশপুর গ্রামের এমদাদুলের ছেলে শাহ কামরুজ্জামান তুষার (৩২) ও বগুড়ার শিবগঞ্জের আলাদীপুর গ্রামের আফজাল হোসেনের ছেলে আশিকুর রহমান আশিক (৪০)। এদের বিরুদ্ধে মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ আইনে পৃথক দুটি মামলা দায়ের করা হয়েছে। ৩০ সেপ্টেম্বর দিনাজপুর থেকে বগুড়াগামী পুনর্ভবা নামের একটি বাস তল্লাশি করে ১০০ বোতল ফেন্সিডিল সহ আসামী দিনাজপুরের নবাবগঞ্জ থানার দোমাইল কাঞ্চনডোম এলাকার মৃত কাদের আলীর ছেলে মনজুরুল ইসলামকে (২৫) গ্রেফতার করা হয়। ২৯ সেপ্টেম্বর রংপুর থেকে রাজশাহীগামী একটি যাত্রীবাহী বাস তল্লাশি করে ১ (এক) কেজি গাঁজাসহ নারী মাদক ব্যবসায়ী আছিয়া বেগমকে (৩৭) গ্রেফতার করে। সে কুড়িগ্রামের ফুলবাড়ী থানার খালিশা কোটাল এলাকার মজনু মিয়ার স্ত্রী।

২৪ সেপ্টেম্বর দিনাজপুর থেকে ঢাকাগামী শ্যামলী পরিবহনের একটি বাস তল্লাশি করে ১০০ বোতল ফেন্সিডিল সহ ময়মনসিংহ সদরের আকোয়া মোড়লবাড়ী এলাকার মৃত হাবিবুর রহমানের ছেলে আইনুল হককে (৩২) গ্রেফতার করে মোকামতলা পুলিশ। একই দিনে পৃথক অভিযানে দিনাজপুর থেকে ঢাকাগামী এসআর পরিবহনের একটি বাস তল্লাশি করে ৩০ বোতল ফেন্সিডিলসহ মাদক ব্যবসায়ী আব্দুর রব কে (৩৫) গ্রেফতার করা হয়। সে দিনাজপুরের নবাবগঞ্জ থানার মতিহারা এলাকার দুলাল হোসেনের ছেলে। ২৩ সেপ্টেম্বর দুটি যাত্রীবাহী বাসে তল্লাশি করে ৪০ বোতল ফেন্সিডিল সহ দিনাজপুরের হাকিমপুর থানার দক্ষিন বাসুদেবপুর এলাকার মৃত মমিনুল ইসলামের স্ত্রী বেবী আক্তারকে (৪৮) গ্রেফতার এবং দেড় কেজি গাঁজা সহ কুড়িগ্রামের ফুলবাড়ী থানার পুর্বধনিরাম এলাকার তাহের আলীর ছেলে রাসেল কে (২৩) গ্রেফতার করে। ২২ সেপ্টেম্বর পঞ্চগড় থেকে ঢাকাগামী শ্যামলী পরিবহনের একটি বাস তল্লাশি চালিয়ে ২০০ বোতল ফেন্সিডিলসহ রহিমা খাতুন (৪০) নামের একজনকে গ্রেফতার করে পুলিশ। সে দিনাজপুরের পার্বতীপুর থানার ডন্ডপানি এলাকার বাবলু মিয়ার স্ত্রী।

মোকামতলা পুলিশ তদন্ত কেন্দ্রের ইনচার্জ (পুলিশ পরিদর্শক) মিজানুর রহমান মিজান মুঠোফোনে এসব তথ্য নিশ্চিত করে বলেন, পৃথক অভিযানে গ্রেফতারকৃত মাদক ব্যবসায়ীদের বিরুদ্ধে মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ আইনে পৃথক পৃথক মামলা দায়ের করা হয়েছে। পুলিশ সুপার বগুড়া মহোদয়ের নির্দেশে মাদক বিরোধী অভিযান চলছে।

বগুড়া জেলা প্রতিনিধি,
দীর্ঘদিন থেকে সাংবাদিকতা পেশার সাথে জড়িয়ে আছেন। বস্তুনিষ্ঠ সংবাদ প্রকাশই তাঁর লক্ষ্য এবং এ বিষয়ে তিনি অনেক সচেতন।

সর্বশেষ তালাশ

অপরাধ জগত