এইমাত্র পাওয়া

শুভেচ্ছায় সিক্ত আরিফ, গেলেন কামরানের বাসায়

সারাদিন উদ্বেগ-উৎকণ্ঠা আর উত্তেজনার পর পেল্ডুলামের মতো দুলেছে ভোটের ফল। একজন এগিয়ে গেলেন তো আরেকজন প্রতিদ্বন্দ্বীকে কিছুক্ষণের মধ্যেই ছাড়িয়ে গেছেন। শ্বাসরুদ্ধকর কয়েক ঘণ্টার অপেক্ষার পরও আসেনি চূড়ান্ত ফল। তবে দুটি কেন্দ্রের ভোট ছাড়া চার হাজার ৬২৬ ভোটে এগিয়ে আছেন বিএনপির মেয়র প্রার্থী আরিফুল হক চৌধুরী। সোমবার গোলযোগের জন্য স্থগিত হওয়া দুটি কেন্দ্রের মোট ভোট চার হাজার ৭৮৭টি। এ দুটি কেন্দ্রে পুনর্নির্বাচনে মাত্র ১৬২টি ভোট পেলেই সিলেট সিটি নির্বাচনে বিজয়ী হবেন আরিফুল হক চৌধুরী।

ভোটযুদ্ধে নামার পর থেকেই তার বিজয় ছিনিয়ে নেওয়ার ষড়যন্ত্র হচ্ছে বলে অভিযোগ করে আসছিলেন আরিফুল হক চৌধুরী। ভোট গ্রহণ শেষেও কেন্দ্র দখলসহ নানা অনিয়মের অভিযোগ তুলেছেন তিনি। শেষ পর্যন্ত লড়াই চালিয়ে যাওয়ার কথাও বলেন। সোমবার রাতে রিটার্নিং অফিসারের কার্যালয়ে ১৩৪ কেন্দ্রের মধ্যে ১৩২ কেন্দ্রের ফল ঘোষণা করা হয়। এতে নাটকীয়ভাবে এগিয়ে থাকা আরিফুল হক চৌধুরী বলেছেন, সিলেটবাসী ব্যালটের মাধ্যমে ষড়যন্ত্রের জবাব দিয়েছেন। এটি গণতন্ত্রের বিজয়।

গাণিতিক হিসাবে ‘অপেক্ষায়’ থাকলেও আরিফুল হক চৌধুরীর এখন মেয়র পদ ধরে রাখা প্রায় নিশ্চিত। মঙ্গলবার রিটার্নিং অফিসার আলীমুজ্জামান জানিয়েছেন, নির্বাচন কমিশন সিদ্ধান্ত দিলেই স্থগিত হওয়া দুটি কেন্দ্রে পুনর্নির্বাচন হবে। তবে সে সময় পর্যন্ত অপেক্ষা করার প্রয়োজন আছে বলে মনে করছেন না আরিফুল হক চৌধুরীর সমর্থকরা। মঙ্গলবার সকাল থেকে নগরীর কুমারপাড়ার বাসায় কর্মী-সমর্থকদের ঢল নামে। দলের নেতাকর্মীদের পাশাপাশি প্রায় সারাদিন বিভিন্ন শ্রেণি-পেশার মানুষের ফুলেল শুভেচ্ছায় সিক্ত হয়েছেন আরিফুল হক চৌধুরী।

মঙ্গলবার বিকেলে বিএনপির এ নেতা সপরিবারে যান সিলেট সিটি নির্বাচনের তার প্রধান প্রতিদ্বন্দ্বী আওয়ামী লীগের মেয়র প্রার্থী বদর উদ্দিন আহমদ কামরানের বাসায়। প্রচারের মাঠে দু’জন একে অপরকে কথার যুদ্ধে ঘায়েল করলেও সিলেটের রাজনৈতিক ও সামাজিক সম্প্রীতির ঐতিহ্য রক্ষার আহ্বান জানিয়েছেন। স্ত্রী সামা হক চৌধুরী ও বড় মেয়ে নাহিদাকে নিয়ে আরিফুল হক চৌধুরী প্রতিদ্বন্দ্বীর বাসায় গেলে কামরান পরিবার তাদের স্বাগত জানিয়েছেন। আরিফুল হক চৌধুরীকে সর্বাত্মক সহযোগিতার আশ্বাস দিয়েছেন কামরান।

এদিকে, মঙ্গলবার দুপুরে হযরত শাহজালালের (রহ.) মাজার জিয়ারত করেন আরিফুল হক চৌধুরী। বাদ জোহর দরগাহ মসজিদে দোয়া ও মিলাদ মাহফিলের আয়োজন করা হয়। এ সময় আরিফুল হক চৌধুরী সৃষ্টিকর্তার শুকরিয়া আদায় করে সংক্ষিপ্ত বক্তৃতায় বলেন, এ রায়ে সিলেটবাসীর প্রতি আমি কৃতজ্ঞ। দোয়া মাহফিলে বিএনপির কেন্দ্রীয় সহ-সাংগঠনিক সম্পাদক কলিম উদ্দিন মিলন, বিএনপির মেয়র প্রার্থীর প্রধান নির্বাচনী এজেন্ট ডা. শাহরিয়ার হোসেন চৌধুরী প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।

প্রথমবারের মতো দলীয় প্রতীকে অনুষ্ঠিত সিলেট সিটি নির্বাচনে আরিফুল হক চৌধুরী ৯০ হাজার ৪৯৬ ভোট পেয়ে এগিয়ে আছেন। অন্যদিকে আওয়ামী লীগের বদর উদ্দিন আহমদ কামরান পেয়েছেন ৮৫ হাজার ৮৭০ ভোট। ২০১৩ সালের ১৫ জুনের আগের নির্বাচনে বিজয়ী হয়ে প্রথমবারের মতো সিলেটের মেয়র হয়েছিলেন আরিফুল হক চৌধুরী।

নেট থেকে সংগৃহিত ও অনুবাদকৃত সংবাদ সমূহ অফিসে সাব-এডিটরগণ সম্পাদনা করে প্রকাশ করে থাকেন। এ জাতীয় সংবাদ গুলো ডেস্ক নিউজ হিসেবে প্রকাশিত হয়।

সর্বশেষ তালাশ

অপরাধ জগত