এইমাত্র পাওয়া

ফ্রান্সের সঙ্গে জিতলেই ফাইনাল খেলে আর্জেন্টিনা

এবার বিশ্বকাপের গ্রুপ পর্ব থেকেই বিদায়ের শঙ্কায় ছিল আর্জেন্টিনা। তবে গ্রুপ পর্বের শেষ ম্যাচে নাইজেরিয়াকে হারিয়ে সব শঙ্কা উড়িয়ে শেষ ষোলোর টিকিট পায় মেসির দল। দ্বিতীয় রাউন্ডে নেই হিসাবের জটিলতা। এখানে একটাই হিসাব, হারলেই বাদ।

দ্বিতীয় রাউন্ডে কাজানে আজ শনিবার রাত ৮টায় ফ্রান্সের মুখোমুখি হবে দু’বারের বিশ্বচ্যাম্পিয়নরা। আজ আলবিসেলেস্তেদের সামনে আরও কঠিনতর রাস্তা-ফ্রান্স। সাম্প্রতিক ফর্মে অনেকেই এগিয়ে রাখছেন ফ্রান্সকে। তবে আর্জেন্টিনা সমর্থকদের সুখবর দিচ্ছে অতীত পরিসংখ্যান।

এ পর্যন্ত বিশ্বকাপে দু’বার মুখোমুখি হয়েছে ফ্রান্স-আর্জেন্টিনা। ১৯৩০ ও ১৯৭৮ সালে বিশ্বকাপের গ্রুপ পর্বে সাক্ষাৎ হয়েছিল তাদের। আর্জেন্টিনা সমর্থকদের জন্য খুশির খবর হচ্ছে দুবারই জিতেছিল আর্জেন্টিনা। আর এই দু’বারই ফাইনালে খেলেছিল আর্জেন্টিনা এবং ১৯৭৮ সালে প্রথম বিশ্বকাপ জিতে তারা।

আরো একটি পরিসংখ্যানে এগিয়ে মেসির দল। প্রীতি ম্যাচ ও বিভিন্ন টুর্নামেন্ট মিলে এ পর্যন্ত ১১ বার মুখোমুখি হয় আর্জেন্টিনা-ফ্রান্স। মাত্র দুবার হেরেছে আর্জেন্টিনা। এর সর্বশেষটি ১৯৮৬ সালে। ফ্রান্স ও আর্জেন্টিনার সর্বশেষ সাক্ষাৎ হয় ২০০৯ সালে। মেসি ও গুতিয়েরেজের গোলে ম্যাচটি ২-০ গোলে জিতে নেয় আলবিসেলেস্তারা। এর আগে ২০০৭ সালে স্যাভিওলার গোলে ফরাসিদের হারায় আর্জেন্টিনা।

পরিসংখ্যানে মেসিরা এগিয়ে থাকলেও বাস্তবতা বলছে ভিন্ন কথা। বাছাইপর্ব থেকে ধুঁকতে ধুঁকতে মূলপর্বে এসেছে আর্জেন্টিনা। প্রথম ম্যাচে আইসল্যান্ডে বিপক্ষে ড্র করেন মেসি-মারিয়ারা। পরের ম্যাচে হেরে যায় ক্রোয়েশিয়ার বিপক্ষে। শেষ ম্যাচে নাইজেরিয়ার বিপক্ষে কষ্টার্জিত জয়ে শেষ ষোলো নিশ্চিত হয় দলটির। ভয়ের কথা হলো, তিন ম্যাচে পাঁচবার আর্জেন্টিনার জাল কাঁপায় প্রতিপক্ষ দলগুলো।

একবারেই ভিন্ন অবস্থা ফরাসি শিবিরে। গ্রুপপর্বে তিন ম্যাচের দুটিতেই জিতেছে ফ্রান্স। তার চেয়ে বড় কথা, প্রতিপক্ষ মাত্র একবারই ফরাসি রক্ষণবুহ্য ভাঙতে পেরেছে। এমবাপ্পে, গ্রিজম্যান, জিরুদরা ভালো ফর্মে রয়েছেন। দলটিকে ভরসা যোগাচ্ছে তাদের রক্ষণভাগ। মেসি-আগুয়েরো-মারিয়াদের ঠেকানোর জন্য রয়েছেন ভারানে, লুকাস হার্নান্দেজ, ইমতিতি, পাভান ও এনগোলা কন্তে।

নেট থেকে সংগৃহিত ও অনুবাদকৃত সংবাদ সমূহ অফিসে সাব-এডিটরগণ সম্পাদনা করে প্রকাশ করে থাকেন। এ জাতীয় সংবাদ গুলো ডেস্ক নিউজ হিসেবে প্রকাশিত হয়।

সর্বশেষ তালাশ

অপরাধ জগত