এইমাত্র পাওয়া

থানায় এনে সন্ত্রাসী কায়দায় যুবককে পিটিয়ে গুরুতর আহত করারর অভিযোগ

সোনাইমুড়ি উপজেলার দেওটি ইউনিয়ন থেকে শামছুল আলম শিপন নামক এক যুবককে কোন ধরনের মামলা বা অভিযোগ ছাড়া সোনাইমুড়ি থানার এস আই আনোয়ার রবিবার বিকেলে থানায় এনে সন্ত্রাসী কায়দায় পিটিয়ে গুরুতর আহত করে। শিপনকে বর্তমানে চিকিৎসার জন্য বজরা মেডিকেলে ভর্তি করা হয়েছে।

শিপন দেওটি ইউনিয়নের পতিশ গ্রামের আবুল কালামের ছেলে। আহত শিপন সাংবাদিকদের জানায়, তিনি বিকেল ৩টায় ভুঁইয়া বাড়ির সামনে মাববুবের দোকানে বসে আছেন। এমন সময় সোনাইমুড়ি থানার এস আই আনোয়ার কয়েকজন পুলিশ নিয়ে শিপনকে ধরে চড়, থাপড় ও কিল-ঘুসি মারতে থাকে। তিনি মাটিতে লুটিয়ে পড়লে আসআই আনোয়ার হাতে থাকা রাইফেল দিয়ে পিটিয়ে গুরুতর আহত করে। সেখান থেকে সিএনজি গাড়িতে উঠিয়ে অকথ্য ভাষায় গালাগাল করে থানায় নিয়ে আসে। থানায় এনে আবারও মারধর করে আটক করে রাখে।
সন্ধ্যায় পরিবারের লোকজন আসলে থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা নাছিম উদ্দিন শিপনকে পরিবারের হাতে তুলে দেয়। শিপনকে আটক করার বিষয়ে ওসি বলেন, শিপনের বিরুদ্ধে কোন মামলা বা অভিযোগ নেই। তাকে আটক করার জন্য এসআই আনোয়ার তার অনুমোদন নেয়নি। বিষয়টি খতিয়ে দেখে এসআই আনোয়ারের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়ার জন্য উর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষকে জানানো হবে।
মারধরের ঘটনা বিকেলে জেলা পুলিশ সুপার ইলিয়াছ শরীফ ও অতিরিক্ত পুলিশ জহিরুল ইসলামকে তাৎক্ষনিক জানানো হয়েছে

নেট থেকে সংগৃহিত ও অনুবাদকৃত সংবাদ সমূহ অফিসে সাব-এডিটরগণ সম্পাদনা করে প্রকাশ করে থাকেন। এ জাতীয় সংবাদ গুলো ডেস্ক নিউজ হিসেবে প্রকাশিত হয়।

সর্বশেষ তালাশ

অপরাধ জগত